লক্ষ্য যখন মেডিকেল; প্রস্তুতি হওয়া চাই যেমন

Share This News

এই বছর  এমবিবিএস  কোর্সে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে আগামী ২ এপ্রিল।যদি পরীক্ষার তারিখ সংশোধন না হয় তাহলে আগামী 2 এপ্রিল ভর্তি পরীক্ষায় বসতে যাচ্ছে এমবিবিএস কোর্সে ভর্তি পরীক্ষার্থীরা। সেই হিসেবে যারা এমবিবিএস কোর্সে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে যাচ্ছে তাদের হাতে সময় এক মাসের মতো সময় রয়েছে । এ সময় তোমাকে পূর্ণাঙ্গ প্রস্তুতি নিতে হবে। তুমি যদি কিছু গাইডলাইন ফলো করি তাহলে তোমার ভর্তিপ্রস্তুতিটা হবে  কাঙ্খিত।   স্বল্প সময়ে কিভাবে ভালোভাবে প্রস্তুতি নেওয়া যায়  সে বিষয়ে আজকে  গুরুত্বপূর্ণ তথ্য করবো শেয়ার-

এ বছর ভর্তি পরীক্ষার মানবন্টন-

আমরা প্রথমে পরীক্ষার মানবন্টন বিষয়ক  কথা বলি। মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায়   জিপিএর উপর থাকছে ২০০ নাম্বার।এসএসসি ও এইচএসসি ফলাফলের উপর নির্ভর করবে এই নাম্বার।

তাছাড়া বিষয়ভিত্তিক নাম্বার বন্টন –

 জীববিজ্ঞানের ৩০

 রসায়নের   ২৫

 পদার্থবিজ্ঞানী ২০

 ইংরেজিতে ১৫

 সাধারণ জ্ঞান১০

শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি-

শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি হিসেবে প্রতিটি বিষয়ের বেসিক ক্লিয়ার করতে হবে।  যে সকল বিষয়ে প্রস্তুতি কম সেগুলো দিকে ভালোভাবে ফোকাস দিতে হবে।    সকল অধ্যায় পুনরায় বারবার রিভিশন দিতে হবে। ভালো রিভিশনে পারে ভালো ফলাফল নিয়ে আসতে। সকল বিষয়কে সহজ ভাবে পড়ার চেষ্টা করতে হবে। কারণ কোন বিষয় কঠিন ভাবলে সেই বিষয় বাকি থেকে যায়। 

 সকল বিষয়ে প্রতিদিন পড়ার চেষ্টা করতে হবে। যে বিষয়ে মনে হবে ভালো প্রস্তুতি রয়েছে ওই বিষয়ে আরো ভালো করার জন্য চেষ্টা করতে হবে। ভালো প্রস্তুতি আছে বিধায় কোন বিষয়ের প্রস্তুতি বন্ধ করা যাবে না ।  তাই ভালো প্রস্তুতির জন্য চাই সকল অধ্যায়ের বেসিক ক্লিয়ার এবং পুনঃ পুনঃ রিভিশন।

বিষয় ভিত্তিক আলোচনা

 সাধারণ জ্ঞানের প্রস্তুতি-

সাধারণ জ্ঞানের প্রস্তুতি হিসেবে প্রতিমাসের   প্রকাশিত হয় এমন কোন নিউজ অথবা সাধারণ জ্ঞানের বই পড়া যেতে পারে।  পত্রিকা পড়ার অভ্যাস থাকলে ভালো প্রতিদিন ১০ থেকে ১৫ মিনিট পত্রিকা পড়লে অনেক সাধারন জ্ঞানের বিষয় আপনার আয়ত্তে চলে আসবে। তাছাড়া  বাংলাদেশের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে ভালো ধারণা থাকলে পরীক্ষায় সাধারণ জ্ঞানের অনেকাংশ কমন আসবে।

 তাছাড়া বিগত বছরগুলোতে আসা প্রশ্ন গুলো দেখে নাও। আশারাখি উপরের বিষয়গুলো উপর ফোকাস রাখলে সাধারণ জ্ঞানে বেশ ভালো নাম্বার পাওয়া সম্ভব।

 ইংরেজি বিষয়ের প্রস্তুতি

 ইংরেজি বিষয়ের প্রস্তুতির জন্য ইন্টারমিডিয়েটে ইংরেজি প্রথম পত্র বইটি আরো একবার রিভিশন দেওয়া যেতে পারে। ইংরেজি প্রথম পত্রের বিভিন্ন শব্দগুলো  অর্থ জানা, সঠিক বানান জানা, সমার্থক শব্দ ও বিপরীত শব্দ দেখে নাও। 

 ইংরেজি গ্রামারের প্রস্তুতি 

 মেডিকেলে যেসব বিষয়ে  ইংরেজিতে প্রশ্ন আসে-

Voice

Narration

Synonym

 Antonym 

Correction

Spelling

 Preposition

 Phrase

 Idioms

উপরোক্ত  বিষয়গুলো যেকোন ইংরেজী গ্রামার বই থেকে  বিস্তারিত পড়ে নিতে পারো।

 তাছাড়া মেডিকেল ও ডেন্টাল পরীক্ষায়  ইংরেজি বিষয়ে প্রশ্ন আসছে  এমন প্রশ্নগুলোর সমাধান করতে পারো যেকোন প্রশ্ন ব্যাংক থেকে।

জীববিজ্ঞানের প্রস্তুতি

পাঠ্যবই কে পুনরায় রিভিশন দিতে হবে যেসকল কনসেপ্ট সম্পর্কে ভালো ধারণা নেই বা প্রস্তুতি নেই সেগুলো আগে শেষ করতে হবে।  বিগত ১০ বছর মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় আসা প্রশ্ন গুলো সমাধান করতে হবে।

 পদার্থ বিজ্ঞান প্রস্তুতি-

 পদার্থবিজ্ঞান অধ্যায়ভিত্তিক ভালো ধারণা থাকতে হবে, পদার্থবিজ্ঞানের সূত্রগুলো জানায় এবং সূত্রের ব্যাখ্যা জানা খুবই গুরুত্বপূর্ণ  কারণ পদার্থবিজ্ঞানে ম্যাথমেটিক্যাল টার্ম থাকে। ম্যাথম্যাটিকেল টার্ম সমাধান করতে হলে সূত্রের প্রয়োগ জানা জরুরি।   পদার্থবিজ্ঞানে অনেকগুলো রাশি আছে যে রাশিগুলোর মান জানতে হবে। তাছাড়া বিগত বছরে যে সকল প্রশ্ন গুলো আসছে সেগুলো সমাধান করতে হবে। প্রশ্ন ব্যাংক থেকে বিগত বছরের প্রশ্ন গুলো বার বার অনুশীলন করতে হবে।

 রসায়ন বিষয়ের প্রস্তুতি-

  রসায়ন   মূল বইয়ের উপর গুরুত্ব দাও । বিগত ১০ বছরে আসা প্রশ্ন গুলো সমাধান করতে হবে। তাছাড়া বইয়ের  গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলোর উপর নজর দিতে হবে।

 পরীক্ষার ৩০ দিন আগের প্রস্তুতি- 

প্রতিদিন একটি বই রিভিশান দেওয়ার  চেষ্টা করতে হবে। মনে করতে হবে আগামি কালকে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে । সেই লক্ষ্য নিয়ে ভালোভাবে প্রস্তুতি নিতে হবে।

পরীক্ষার আগের দিনের প্রস্তুতি-

 পরীক্ষার আগের দিন খুব বেশি পড়ার প্রয়োজন নেই যেহেতু তুমি পূর্বেই পরীক্ষার জন্য ভালোভাবে প্রস্তুতি  নিয়েছ  সুতরাং অযথা এখন পড়তে গিয়ে দুশ্চিন্তা পড়ার প্রয়োজন নেই। পরীক্ষার আগের দিন টা পুরা রিলেক্স থাকতে হবে পরীক্ষা নিয়ে হতাশ হওয়া যাবে না। মনে করতে হবে পরীক্ষায় যা কিছু আসবে সব কিছুই তোমার কমন আসবে।  পরীক্ষার আগের দিন পর্যাপ্ত ঘুমাতে হবে।  আগের দিনই পরীক্ষা হলে যাওয়ার জন্য প্রবেশপত্র এবং প্রয়োজনীয় সামগ্রী গুছিয়ে রাখতে হবে ।এবং পরীক্ষার সিট কোথায় পড়ছে সেই বিষয় নিশ্চিত হতে হবে।

পরীক্ষার দিন করণীয়-

যথাসম্ভব পরীক্ষার হলে  এক ঘন্টা আগে পৌঁছানোর চেষ্টা করতে হবে।পরীক্ষার বিষয়ে মানসিক চাপ নেওয়া যাবে না। পরীক্ষার হল যখন খুলে দেয়া হবে ধীরে স্থিরে গিয়ে বসতে হবে।   পরীক্ষার প্রশ্নপত্র এবং উত্তর পত্র দেওয়ার পর মনোযোগ সহকারে প্রয়োজনীয় ঘরগুলো পূরণ করতে হবে।  কোন ভাবে যাতে ভুল না হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। পুরো পরীক্ষার সময় মাথা ঠান্ডা রেখে পরীক্ষা দিতে হবে। যে প্রশ্নগুলো জানা আছে সেগুলো প্রথমে উত্তর করে ফেলবে। পরে অন্য প্রশ্নগুলোর সমাধান করার চেষ্টা করবে।

শুভ হোক তোমাদের প্রস্তুতির এই যাত্রা শুভ কামনা সবার জন্য


Share This News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *