ইফতারে রাখুন স্বাস্থ্যকর মিক্সড ফ্রুট সালাদ

Share This News

রমজানে প্রায় প্রতিটি ঘরেই চলে ইফতারের আমেজ। সারাদিন রোজা রাখার পর  ইফতারের মাধ্যমে আমরা আমাদের রোজা  পরিপূর্ণ করি। আমাদের ইফতারের তালিকা বেশিরভাগই থাকে অস্বাস্থ্যকর খাবার যা ভাজাপোড়া এবং তেল চর্বি জাতীয় খাবার সারাদিন না খাওয়ার ফলে যা আমাদের বদহজমের জন্য দায়ী এবং তৈরি করে আমাদের দেহের মধ্যে এসিডিটি। তাই  রমজানে প্রয়োজন স্বাস্থ্যকর এবং সুস্বাদু ও পুষ্টিকর ইফতার।

এক প্লেট সতেজ ফলের সালাদ আমাদের সারাদিনের ক্লান্ত দেহ কে করতে পারে সতেজ এবং আমাদের শরীরকে করতে পারে ক্লান্তি মুক্ত। তেমনি একটি ফলের সালাদ নিয়ে আজকে আমাদের সালাদের রেসিপি। যা থেকে খুব সহজেই তৈরি করে নিতে পারবেন স্বাস্থ্যকর মিক্সড ফ্রুট সালাদ। 

মিক্সড ফ্রুট সালাদ  তৈরি করতে আমাদের যা লাগবে-

যেহেতু এটি একটি ফলের সালাদ সেখানে ফলের আধিক্য তো থাকবেই। ফলের  তালিকায় রাখা যায়  একগোছা যেকোনো ধরনের আঙ্গুর, তিনটি কলা, তিনটি নাশপাতি, তিনটি আপেল, ডালিম  একটি, কমলা লেবুর রস ১ চা চামচ মধু ২-৩ চা চামচ, সালাদ ড্রেসিং পরিমাণমতো, ধনেপাতাকুচি আন্দাজমতো, ওয়ালনাট কয়েক টুকরা।

যেভাবে প্রস্তুত করবেন মিক্সড ফ্রুট সালাদ

সব ধরনের ফলকে ছোট ছোট টুকরো করে নিবও। পাকা কলা আপেল নাশপাতি ছোট করে টুকরো করে নিব। পরবর্তীতে সবগুলো ফল ও বাকি উপকরণ মিশিয়ে ফেললে তৈরি হয়ে যাবে সুস্বাদু মিক্সড ফ্রুট সালাদ। পরিবেশনের পূর্বে দুই থেকে তিন ঘণ্টা রেখে পরিবেশন করলে আরো হবে সুস্বাদু।

ঘরে তৈরি করুন হজম সহায়ক বোরহানী

এই গরমে আমাদের ইফতারে রাখা যায় এক গ্লাস ঠান্ডা বোরহানী । বোরহানী আমাদের হজম শক্তি বৃদ্ধি করে সেই সাথে বোরহানীতে রয়েছে স্বাস্থ্যগত গুণ।  আপনি কিভাবে ঘরে মজাদার এই পানীয় তৈরি করতে পারবেন সে সম্পর্কে আমাদের আজকের এই লেখা।

বোরহানী বিয়ে বাড়ি অথবে যেকোন সামাজিক অনুষ্ঠানে এটি একটি জনপ্রিয় পানীয়।বিশেষ করে ভারি খাবার খাওয়ার পর যেমন পোলাও এবং অতিমাত্রা আমিষ খাবার পর বোরহানী আমাদের হজমক্রিয়া সহায়তা করে।

 এই গরমে এক গ্লাস বোরহানী দিতে পারে আপনাকে আত্মতৃপ্তি এবং সেই সাথে আপনার হজমক্রিয়ার সহায়ক হিসাবে কাজ করবে । এই পানীয়টি স্বাস্থ্যসম্মত এবং সুস্বাদু ও বটে।

 স্বাস্থ্যবীদদের মতে অন্যান্য যে কোন অ্যালকোহলযুক্ত পানীয় থেকে উত্তম হচ্ছে বোরহানি। অ্যালকোহলযুক্ত পানিগুলো আমাদের আমাদের কিডনী ও লিভারের জন্য ক্ষতিকর কিন্তু বোরহানি আমাদের পাকস্থলীর খাদ্য হজমে সহায়তা করে।

প্রথমে আমরা জেনে নিই বোরহানী তৈরিতে কি কি উপাদানের প্রয়োজন-

বোরহানী তৈরীর উপাদান-

টক দই (১ কেজি পরিমাণ তবে এক্ষেত্রে আপনি কতজনের জন্য তৈরি করবেন  তা বিবেচ্য)

মিষ্টি দই – ১ কাপ পরিমাণ (মিষ্টি দই না দিলেও বোরহানী হবে,এক্সট্রা স্বাদের জন্য দেওয়া যেতে পারে)

বিট লবণ- ১ চা চামচ

চিনি(ডায়েবেটিকস রোগীদের জন্য চিনি উপাদান বাদ দিয়ে তৈরি করুন,তৈরির পরে ডায়েবেটিকস যাদের উনাদের জন্য আলাদা করে রেখে বাকিটুকুতে চিনি দিয়ে আবার ব্লেন্ডার করুন)

পুদিনা পাতা বাটা ( পরিমাণ মতো দিন) 

সাদা গোলমরিচ গুঁড়ো-১ চা চামচ

সরিষা  বাটা-২ চা চামচ

বরফকুচি( বরফকুচি না থাকলে বোরহানি প্রস্তুত করার পরে তা ফ্রিজে সংরক্ষণ করা যেতে পারে তবে তা খাওয়ার পূর্বে ঝেকে নিতে হবে)

প্রস্তুত প্রণালি-

উপরের উপাদানগুলো পরিমাণমতো আপনার ব্লেন্ডারে নিন পরবর্তীতে উপাদান গুলো ভালো করে মিক্স করার জন্য কয়েক মিনিট ব্লেন্ডার করুন যাতে করে উপাদানগুলো ভালোভাবে মিশ্রন হয়। এবার মিশ্রণ্টি  ভালো ভাবে ছেঁকে নিন। এর পর বরফ কুচি দিয়ে পরিবেশন করুন।বরফ না থাকলে ২-৩ ঘন্টা ফ্রিজে রেখে পরিবেশন করুন।


Share This News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *