মাস্ক ব্যবহারে নিতে হবে ত্বকের বাড়তি যত্ন

Share This News

মাস্ক যেন বর্তমানে আমদের পোষাকেরই একটি অংশ।তাই সময়ের বিবির্তনে এসেছে মাস্কের পরিবর্তন।
কেউ পোষাকের সাথে মিল রেখে পড়ে মাস্ক আবার কেউ পরে বাহারি রঙ্গের।সরকারের নীতিমালা অনুযায়ী মাস্ক পড়া যেমন বাধ্যতা মূলক,তেমনি মাস্ক পড়লে ত্বকের চাই বাড়তি যত্ন।

মাস্ক পড়লে নাক আর মুখের ওপর বসে যায় চাপ।এছাড়া মাস্ক পড়ার ফলে মুখের ত্বকে ঠিকমতো বাতাস লাগে না।মুখের ত্বকে বাতাস না লাগায় বেড়ে যায় মুখের ত্বকের আদ্রতা।মাস্ক পড়ার ফলে মুখের ত্বক ঘেমে যায় যার ফলে মুখের ত্বকে দেখা যায় তেলতেলে ভাব যার ফলে মুখের ত্বকে ব্রণ, ত্বকের রঙের পার্থক্য, দাগ বা ট্রমালাইনের মতো সমস্যা দেখা দেয়।

যারা অফিস কিংবা বাসার বাইরে কাজ করে তারা দীর্ঘ সময় মাস্ক ব্যবহার করে থাকতে হয় যার ফলে মুখের ত্বকের বাতাস চলাচল স্বাভাবিক না হওয়া জন্ম নেয় ব্যাকটেরিয়া এবং দেখা দেয় নানা ধরনের ত্বক জনিত সমস্যা। মাস্ক ব্যবহারের ত্বকের সমস্যা গুলো হলেও সুস্থ থাকার জন্য মাস্ক ব্যবহারের বিকল্প নেই তাই অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করলে নিতে হবে ত্বকের বাড়তি যত্ন।
যেভাবে নিবেন মুখের ত্বকের যত্নের বাড়তি সুরক্ষা-


ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার –
বাইরে থেকে বাসায় এসেই কিংবা রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে নিয়ে ব্যবহার করতে পারেন ময়েশ্চারাইজার যেকোনো ধরনের ক্রিম।মশ্চারাইজিং আমাদের ত্বকের শুষ্ক ভাব দূর করে। এবং আমাদের ত্বকে আনে সজীবতা।

সানস্ক্রিন ব্যবহার
দুপুরের রোদে আমাদের ত্বকের ক্ষতি করে এমনকি স্কিন ক্যান্সার পর্যন্ত হতে পারে তাই দুপুরবেলায় ঘর থেকে বের হতে মুখে সানস্ক্রিন ব্যবহার করতে পারেন।এ ক্ষেত্রে মিনারেল আর পানি আছে, এমন সানস্ক্রিন বেছে নেওয়া জরুরি।


চন্দন ব্যবহার
চন্দন আমাদের মুখের ত্বকের নানা ধরনের ব্যাকটেরিয়া ধ্বংস করে। মাস্ক ব্যবহার ব্যবহারের ফলে ঘেমে গিয়ে সৃষ্ট ব্যাকটেরিয়া ধ্বংসে কার্যকরী আর এই প্রতিরোধ চন্দন খুব ভালো কাজ করে।


অ্যালোভেরা জেল ব্যবহার
অ্যালোভেরা জেল মুখের ত্বকের প্রাকৃতিক প্রসাধনী। রূপচর্চার জন্য অ্যালোভেরার রয়েছে নানা ব্যবহার। মাস্ক ব্যবহারের ফলে মুখের ত্বকের দাগ এবং যেকোনো ধরনের দাগ দূর করতে এলোভেরা জেল ভালো ভূমিকা রাখে। তাই বাড়ি ফিরেই মাস্ক খুলে ফেলে ঠান্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে নিতে হবে। পরে অ্যালোভেরা জেল ব্যবহার করতে পারেন। ত্বকে অ্যালোভেরা জেল ব্যবহারে লালচে ভাব কেটে যাবে।


মুখের ত্বকের যত্নে আরো নিতে হবে বিশেষ সাবধানতা-
মুখে ভেজা মাস্ক ব্যবহার করা যাবে না ভেজা মাস্ক ব্যবহারের ফলে মুখে ব্যকটেরিয়াজনিত প্রদাহ সৃষ্টি করে এবং মুখের সংক্রমণ রোগের বৃদ্ধি ঘটায়।তাই সাথে বাড়তি মাস্ক রাখুন।

মাস্ক পরার আগে মুখে ময়শ্চারাইজার দিতে হবে। এটি ত্বককে সুরক্ষা দেয়।


মাস্ক ব্যবহার করলে মেকআপ করবেন না এতে মুখ ঘেমে গিয়ে মেকাপের সাথে মিশে বিক্রিয়া করে যার ফলে দেখা দেয় মুখের ত্বক জনিত সমস্যা,

মুখ পরিষ্কার করে টোনার আর ময়শ্চারাইজার ব্যবহার করতে হবে।


মেকআপ খুব হালকা রাখতে হবে ।
ঘরে তৈরি বিভিন্ন ধরনের প্রসাধনী ব্যবহার করতে পারেন যাতে করে মুখের ত্বক থাকে আরো বাড়তি সুরক্ষা।

দীর্ঘ সময় মাস্ক পরে থাকার কারণে ঠোঁট শুষ্ক হয়ে উঠতে পারে। তাই ঠোঁটে লিপবাম লাগাতে হবে।


বাজারে এখন নানা ধরনের মাস্ক পাওয়া যায় এর মধ্যে রয়েছে সিনথেটিক কাপড়ের মাস্ক। স্বাস্থ্যবিধদের মতে এই ধরনের মাস্ক মোটেও ব্যবহার করা উচিত নয়।


Share This News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *