ঢাবি ক ইউনিটের সেরা প্রস্তুতি

Share This News

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের     স্নাতক (সম্মান ভর্তি)  পরীক্ষা আবেদনের বিজ্ঞপ্তি ইতিমধ্যেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রকাশ করেছে।

 এবার বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিপরীক্ষা অন্যান্য বারের ভর্তি পরীক্ষার চেয়ে কিছুটা  ব্যতিক্রম।  বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি প্রস্তুতি  যার যত বেশি হবে চান্স   পাওয়া তার জন্য  সহজ হবে।  এবার বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষা জিপিএ এর উপর থাকতে  মাত্র ২০ নাম্বার।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মানবন্টন দেখা যায় তাহলে দেখতে পাব এমসিকিউতে  ৩০  এবং লিখিত ৫০ এবং জিপিএ এর  উপর ভিত্তি করে ৩০ নাম্বার। মোট  ১২০ নাম্বারের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি বিজ্ঞপ্তি তে ঘোষিত তারিখ অনুযায়ী আগামী একুশে মে বিজ্ঞানঅনুষদ অর্থাৎ ক  ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। সেই  হিসেবে আমাদের হাতেই খুবই কম সময় তাই আমরা যদি কিছু  গাইডলাইন মেনে ভর্তি পরীক্ষার প্রস্তুতি তাহলে আমাদের জন্য ভর্তি পরীক্ষা  হবে সহজ এবং সর্বোচ্চ ।

গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষার পূর্ণাঙ্গ প্রস্তুতি

চলো কথা বলা যাক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক ইউনিটে কিভাবে ভালোভাবে প্রস্তুতি নেওয়া যায় সেই বিষয়ে –

আমাদের প্রস্তুতির একদম প্রথম ধাপ হচ্ছে  বেসিক ক্লিয়ার করা   প্রতিটি অধ্যায়ে বিশ্লেষণধর্মী প্রস্তুতি নেওয়া। প্রতিটি বিষয় কিভাবে ক্লিয়ার করা যায়  আমি আজকে এই সম্পর্কে আলোচনা করবও-

জীববিজ্ঞানের প্রস্তুতি

 জীববিজ্ঞানের সবচেয়ে ভালো প্রস্তুতির জন্য মূল বইটির উপর গুরুত্ব দাও। প্রতিটি অধ্যায়ে পুনরাবৃত্তি করে প্রতিটি বিষয় সম্পর্কে ভালোভাবে ধারণা নেওয়া হচ্ছে উত্তম।  তাছাড়া আমরা বিগত বছরে যে প্রশ্নগুলো আসছে আমরা সেগুলোর উপর গুরুত্ব দিতে পারি। ঢাবির যে কোন প্রশ্নব্যাংক থেকে  বিগত বছরের প্রশ্নগুলো নিয়ে পর্যালোচনা করও ।যে সকল বিষয়ে কলেজে কম পড়ানো হয়েছে বা যে  সকল বিষয়ে দুর্বলতা রয়েছে সে সকল বিষয়ের উপর প্রথমে ফোকাস  দাও।কিছু কিছু অধ্যায়ে থেকেই বিগত বছরের প্রশ্ন আসে সেগুলো ভালোভাবে দেখো এবং সেগুলো ভালোভাবে প্রস্তুতি নাও। বায়োলজি বই প্রতি অধ্যায়ের  অধ্যায় ভিত্তিক প্রশ্ন ব্যাংক  অধ্যায়ভিত্তিক প্রশ্ন সমাধান করো।প্রতিদিন  নির্দিষ্ট  কিছু সময় রাখ  মূল বই পড়ার জন্য এবং প্রশ্নব্যাংক সমাধানের জন্য।উপরের  নির্দেশনা অবলম্বন করও আশা রাখি  পরীক্ষা কাঙ্খিত ফলাফল  নিশ্চিত হবে। প্রতিদিন বেশি পড়ার চেয়ে অল্প অল্প করে প্রতিদিন পড়া ভালো তাই প্রতিদিন  পড়ার চেষ্টা করবে।

 পদার্থবিজ্ঞানের প্রস্তুতি-

 পদার্থবিজ্ঞান এ ভর্তি পরীক্ষা ভালো করার জন্য যে  প্রতিটি অধ্যায়ের সম্পর্কে  পূর্ণাঙ্গ ধারণা রাখা জরুরি ।  পদার্থ বিজ্ঞান বইয়ের  সূত্র ব্যাখ্যা সহ জানা ও সূত্রের প্রয়োগ সম্পর্কে ভালো ধারণা রাখও ।পদার্থবিজ্ঞানের বেশিরভাগ প্রশ্নই আসে সূত্র ভিত্তিক।  অনেকগুলো ম্যাথমেটিক্যাল টার্ম থাকে যেগুলোতে সূত্র প্রয়োগ করে মান নির্ণয় করতে হয়।  সূত্র প্রয়োগ এর দক্ষতা থাকতে হবে  যাতে সূত্রভিত্তিক যেকোন প্রশন চট করে দিয়ে দিতে পারো। পদার্থ বিজ্ঞান বইয়ের অনেক রাশি আছে যেগুলার মান থাকে মান গুলো ভালোভাবে আয়ত্ত করে নাও।কিছু কিছু প্রশ্ন  আসে যেগুলো  একটু দ্বিধা মুলক  উত্তর করতে একটু ভেবেচিন্তে করতে হবে।তাছাড়া এই ধরণের প্রশ্নের ভালো সমাধানের জন্য  নিয়মিত প্রশ্ন ব্যাংকের প্রশ্নের সমাধান করতে হবে।  যত বেশি পদার্থবিজ্ঞান অনুশীলন করবে ভর্তি পরীক্ষায় তত ভালো নাম্বার পাওয়া সহজ হবে। তাই প্রতিদিন পদার্থ বিজ্ঞান বিষয়ে অনুশীলন করতে হবে বিগত   বছরের প্রশ্ন গুলোর উপর জোর দিতে হবে।   সূত্র সম্পর্কে ভালো ধারণা থাকলে পদার্থবিজ্ঞানে ভালো নাম্বার পাওয়া খুবই সহজ। তাছাড়া বিগত বছরে ঢাবির ক ইউনিটের আসা প্রশ্ন সমাধান করলে অনেকাংশেই কমন আসবে।

রসায়নের ভর্তি প্রস্তুতি-

 আমার মতে যেকোনো ভর্তি প্রস্তুতির জন্য সবচেয়ে ভালো সিদ্ধান্ত হচ্ছে মূল বই কে ফোকাস করা এবং মূল বইয়ের সব কনসেপ্ট সম্পর্কে ভালো ধারণা থাকা।  মূল বই এর সমকক্ষ কোনো কিছু হয় না কারণ যারা প্রশ্নকর্তা তারা মূক বইকে ফোকাস করে।মূল বইয়ের টপিকগুলো থেকে তারা প্রশ্ন করে থাকে।  বইয়ের সবগুলো অধ্যায় সম্পর্কে ভালো ধারণা তৈরি করতে  হবে।  পরবর্তীতে আমরা মূল বইয়ের অধ্যায় রিভিশন এর পাশাপাশি     বিগত বছরে আসা বিভিন্ন প্রশ্নগুলোর সমাধান করলে তোমাদের ভালো একটা প্রস্তুতি তৈরি হবে।  তাই আমরা প্রথমে প্রশ্নব্যাংক অথবা অন্যকোন বইকে গুরুত্ব না দিয়ে মূল বইয়ের  গুরুত্বপূর্ণ বিষয় গুলোকে গুরুত্ব দিব। যেগুলো আমাদের কলেজে  কম গুরুত্ব দিয়েছে বা তোমাদের প্রস্তুতি ভালোভাবে হয় নাই ওই অধ্যায়গুলো কে আগে তোমরা ক্লিয়ার করব। পরবর্তীতে তোমরা অন্য অধ্যায় শুরু  করও । সবগুলো অধ্যায় সম্পর্কে  ভালো একটা ধারণা আসলে  পরবর্তীতে আমরা ঢাবি ক ইউনিটের বিগত বছরে যে  প্রশ্ন গুলো আসছে  সেগুলো সমাধান করও ।  আশা করি  উপরের নিয়ম গুলো ফলো করলেই তুমি খুব ভালোভাবে ভর্তি প্রস্তুতির নিজেকে তৈরি করতে পারবে ।  তাছাড়া রসায়নের জৈব রসায়ন এর ওপর বিশেষ গুরুত্ব দিতে হবে কারণ এই অধ্যায়টা আমাদের জন্য অনেকটাই কঠিন তবে  এ অধ্যায়ে থেকে বেশ কিছু প্রশ্ন করে থাকে তাই এই অধ্যায়টির উপর প্রথমে  গুরুত্ব দিতে হবে।

গণিতের প্রস্তুতি

গণিতে ভালো প্রস্তুতির জন্য  গণিত বইয়ের অধ্যায় ভিত্তিক সূত্র ভালোভাবে আয়ত্ত থাকা চাই।গণিতে অনুশীলনমূলক তাই পাঠ্যবইয়ে  উদাহরণ এবং অনুশীলনী গুলো আরো একবার দেখে নেওয়া ভালো। তাছাড়া  গণিতে ভালো প্রস্তুতির জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিগত বছর আসা প্রশ্নগুলোর সমাধান করঅও।  তাছাড়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক ইউনিট গনিত  বিষয়ে  জটিল কোনো প্রশ্ন দেওয়া হয় না।  গণিতের সব অধ্যায়ের উপর মোটামুটি ভালো ধারণা এবং সূত্র সম্পর্কিত ভালো দক্ষতা থাকলে গণিতে ভালো নাম্বার পাওয়া সম্ভব। তাছাড়া বিগত বছরে কোন কোন  অধ্যায় থেকে প্রশ্ন এসেছে সেগুলোর উপর বেশি নজর দিতে হবে এবং সেগুলো ভালোভাবে সমাধান করতে হবে।গনিত বিষয়ের জন্য  অনুশীলনের বিকল্প কিছু নেই। প্রতিদিন গণিত বিষয়ের উপর অনুশীলন  করতে হবে।  প্রশ্ন ব্যাংক থেকে  বিগত বছরে  প্রশ্নগুলোর সমাধান করে নাও । 


Share This News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *