১০ টি পেশাদারি টোটকা

Share This News

মানুষকে বাধ্য করার টোটকার কথা শুনেছেন। কখনও কী শুনেছেন পেশাদারি টোটকার কথা?  যে টোটকা গুলো ব্যবহার করতে পারেন আপনার পেশাদারি জীবনে।

আরো পড়ুন-

যেকোন ক্যারিয়ারে প্রয়োজনীয় দক্ষতা

ভাইবা বোর্ডে বসার আগে যে প্রশ্ন জানতে হবে

চলুন জেনে নেওয়া যাক পেশাদারি ১০ টি টোটকা , যা দ্বারা আপনি আপনার পেশাদারিত্বকে তুলে ধরতে পারেন-

১। হাসি মানুষকে বস করার ও আপনার প্রতি গুরুত্ব সৃষ্টি করার একটি গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম।

কারো সাথে প্রথম দেখাতেই মৃদু হেসে কথা বলুন।

২। সব মানুষ স্বীকৃতি পছন্দ করে ও আপনার কাছ থেকে প্রশংসা আশা করে। তাই মানুষকে ধন্যবাদ দিতে শিখুন।সে যে পেশারই হোক না কেন।

৩। অন্যের  ব্যাপারে নেতিবাচক মনোভাব পরিহার করুন ।নেতিবাচক ধারণা দীর্ঘ জীবনের সম্পর্ককে ইতি টানে। মনে রাখবেন,জীবন খুবই ছোট, নেতিবাচক চিন্তার ফলে ছোট্ট এই জীবনের আনন্দগুলো ফিকে হয়ে যায়।

৪। যার সাথে কথা বলছেন তার কথার ধরণ দেখুন তার কথার ধরণ অনুযায়ী আপনিও তার সাথে কথা বলুন। তবে সে রাগান্বিত হলে আপনি রাগান্বিত হবেন না।

৫।আপনার চোখে যদি কোন স্টাইলিশ বা আপনার চোখ দেখা যায় না এমন চশমা থাকে তাহলে অন্যের সাথে কথা বলতে তা খুলে কথা বলুন।এতে আপনাদের কমিউনিউকেশান ভালো হবে।.

৬।অন্যের সাথে কথা বলতে তার মনের অবস্থা বোঝার চেষ্টা করুন।

৭। অন্যের গায়ে অযথা হাত দেওয়া থেকে বিরত থাকুন, অনেকের অভ্যাস আছে কথা বলার  সময় অন্যের গায়ে হাত রেখে কথা বলা।এই অভ্যাস থাকলে পরিহার করুন এতে আপনার বিপরীত জন বিব্রত হতে পার।

৮। অন্যের সাথে সাবলীল ভাষায় কথা বলুন যাতে আপনার কথা অন্যের বোধ গম্য হয়।

৯।ম্যাসেঞ্জারে বা ইমেইলে আপনার প্রয়োজনীয় কথা টুকু ফুটিয়ে তুলুন।অযথা হাই হ্যালো বলবেন না। সময় স্বাপেক্ষে শুভ সকাল,শুভ বিকাল,শুভ রাত্রি বলা যেতে পারে। সালাম দেওয়া যেতে পারে।

১০। সমস্যা সমাধানে সাহায্য চাইলে তা করার চেষ্টা করুন,তবে মনে রাখুন সমস্যা সমাধান করতে গিয়ে নিজের স্বার্থ খুজবেন না।

বোনাস;

মতের মিল না থাকলে তার  সঙ্গ ত্যাগ করুন অযথা  তার সম্পর্কে নেতিবাচক মনোভাব রাখবেন না।

সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে অন্যকে বিচার করা পরিহার করুন, কাউকে জানতে তাকে বুঝার চেষ্টা করুন।


Share This News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *