তিন প্রকৌশল গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার আবেদন যেভাবে করবেন

Share This News

তিনটি সরকারি প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের সমন্বয়ে প্রৌকশল গুচ্ছ আবেদন শুরু হয়েছে গত ২৪ শে এপ্রিল। এ তিনটি প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে রয়েছে-

রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (রুয়েট) 

চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট),

খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (কুয়েট) 

 করোনা পরিস্থিতির কারণে এই বছর এই তিনটি বিশ্ববিদ্যালয় সমন্বয়ে ভর্তি পরীক্ষা আয়োজন করা হয়েছে।

 অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন সম্পন্ন করতে পারবে শিক্ষার্থীরা আবেদন চলবে আগামী ৫ মে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত।

ভর্তি পরীক্ষা বিস্তারিত-

প্রাথমিক আবেদনের প্রেক্ষিতে উচ্চমাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় গণিত, পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন ও ইংরেজি বিষয়ের মোট নম্বরের ভিত্তিতে ৩০ হাজার জনকে পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ দেওয়া হবে ৩ হাজার ২০১টি আসনের বিপরীতে ।ভর্তি পরীক্ষা যোগ্য প্রার্থীদের তালিকাপ্রকাশ করা হবে  আগামী ২ জুন প্রকাশ করা হবে।

ভর্তি পরীক্ষার নম্বর বন্টন-

ভর্তি পরীক্ষার সম্ভাব্য তারিখ আগামী ১২ই জুন। ১২ ই জুন এই তিনটি প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।অনুষ্ঠিত ভর্তি পর‍্যীক্ষায়  গ্রুপ ‘ক’-তে এমসিকিউ পদ্ধতিতে ৫০০ নম্বর এর ভর্তি পরীক্ষা হবে।গ্রুপ ‘খ’-তে ৭০০ নম্বরের এমসিকিউ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

সমন্বিত তিনটি প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষার বিভাগ-

 আবেদনের জন্য একজন শিক্ষার্থীকে ৯০০ টাকা ফি দিয়ে  ‘ক’ গ্রুপে ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগসমূহ এবং নগর উন্নয়ন ও পরিকল্পনা বিভাগে   আবেদন করতে হবে।

এবং খ গ্রুপে শিক্ষার্থীরা ১০০০ টাকা প্রদান করে ‘খ’ গ্রুপে ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগসমূহ, নগর উন্নয়ন ও পরিকল্পনা এবং স্থাপত্য বিভাগের আবেদন করতে হবে।

আবেদন ফি ও আসনসংখ্যা

 বিশ্ববিদ্যালয় ভিত্তিক আসন সংখ্যা-

চুয়েটে আসন ৯০১টি ও সংরক্ষিত ১১টি, 

কুয়েটে ১ হাজার ৬৫ ও সংরক্ষিত ৫টি 

এবং রুয়েটে ১ হাজার ২৩৫ ও সংরক্ষিত ৫টি 

তিন প্রকৌশল গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা বিস্তারিত-

প্রাথমিক আবেদনের প্রেক্ষিতে উচ্চমাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় গণিত, পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন ও ইংরেজি বিষয়ের মোট নম্বরের ভিত্তিতে শীর্ষ ৩০ হাজার জনকে পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ দেওয়া হবে ৩ হাজার ২০১টি আসনের বিপরীতে ।

ভর্তি পরীক্ষা যোগ্য প্রার্থীদের তালিকাপ্রকাশ করা হবে  আগামী ২ জুন প্রকাশ করা হবে।

নম্বর বন্টন-

ভর্তি পরীক্ষার সম্ভাব্য তারিখ আগামী ১২ই জুন। ১২ ই জুন এই তিনটি প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্ন্বিত ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।অনুষ্ঠিত ভর্তি পর‍্যীক্ষায়  গ্রুপ ‘ক’-তে এমসিকিউ পদ্ধতিতে ৫০০ নম্বর এর ভর্তি পরীক্ষা হবে।গ্রুপ ‘খ’-তে ৭০০ নম্বরের এমসিকিউ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

যেভাবে আবেদন সম্পূর্ণ করতে হবে তিন প্রকৌশল গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার-

সম্মিলিত তিনটি বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্দেশনা ক্রম তিন বিশ্ববিদ্যালয়ের সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষার আবেদন ওয়েবসাইটে আবেদন ফরম পূরণ করতে হবে। ওয়েবসাইটের ঠিকানা (https://www.admissionckruet.ac.bd/)

রমজানে পড়ালেখা ; দ্বীনকে সাথে নিয়েই চালিয়ে যাও তোমার পড়ালেখা


রমজানে ছাত্র-ছাত্রীরা  পড়ালেখা থেকে অনেকটা বিচ্যুত হয়ে যায়। রমজান মাসে দ্বীনি  কাজের পাশাপাশি আমরা আমাদের পড়ালেখাকে কিভাবে  আরও মনোযোগ এর সাথে করতে পারি সেই বিষয়ে  আজকে কিছু পরামর্শ।

রমজানে রোজা রেখে আমাদের শরীরটা অনেকটাই ক্লান্ত হয়ে যায় যার ফলে এই অযুহাতে আমরা পড়ালেখায় থেকে বিচ্যুত হয়ে যাই। ইফতারের পরে আমাদের পড়তে একেবারেই মন চায় না এর পরেই আসে তারাবি আর তারাবির নামাজ পড়ে ক্লান্ত দেহ ঘুমে অচেতন হয়ে যায়।  এত ভালো কাজের মাঝে আমরা কিভাবে আমাদের পড়ালেখার মত এত গুরুত্বপূর্ণ একটা বিষযয়ের  প্রতি মনোযোগ দিতে পারি তা নিয়ে এই লেখা।

যেহেতু আমাদের ইফতারের পরে শরীরটা খুব ক্লান্ত হয়ে যায় সেহেতু  তারপরে নাই পড়লাম।  আমাদেরকে আমাদের দ্বীন থেকে দূরে সরে যাওয়া যাবেনা,দ্বীনের পথে চলার পাশাপাশি 

আমাদের দুনিয়াবী কাজেও মনোযোগ দিতে হবে। তাই  তারাবি মিস না করে তারাবি পড়ে এসে রাতের খাবার খেয়ে আমরা ঘুমিয়ে যাব। সাহরি  খেতে ঘুম থেকে উঠে আমরা একটু বাড়তি ইবাদতে মনোযোগ দিবও ,  এই মাস যেহেতু ইবাদতের মাস সেহেতু আমরা সাহরি খেতে উঠে তাহাজ্জুতের নামাজ পড়ে নিব পরবর্তীতে ফজরের নামাজ শেষ করে  আমরা এখন ঘুমাবো না।আমরা আমাদের পড়ার টেবিলে বসব যে ভোর বেলা  অন্যরকম আবহাওয়া আমাদের পড়ালেখায় ভালো মনোযোগ দেওয়া সম্ভব। সাহরি খাওয়াতে আমাদের শরীরে  এখন মোটামুটি  পড়ার মতো শক্তি এবং মানসিকতা তৈরি হয়েছে। তাই ফজরের নামাজের পরে ৪ঃ৩০ থেকে ৬ঃ৩০ পর্যন্ত ২  ঘন্টা আমরা  আমাদের পাঠ্য বইয়ের বিষয় গুলো এর  প্রতি মনোযোগ দিতে পারি এবং আমরা আমাদের পড়ালেখা এই দুই ঘণ্টা খুব মনোযোগ সহকারে পড়তে পারি।

 সকালের এই সময়টুকুতে আমাদের পড়ালেখা তাড়াতাড়ি মুখস্থ এবং অনেক দীর্ঘ সময় মনে থাকে। প্রকৃতির একদম নিরিবিলি পরিবেশে আমরা পড়তে বসছি সেহেতু  পড়ালেখাটা পুরোটুকুই আমাদের মনোযোগের আয়ত্ত্বে ।  এই দুই ঘন্টা পর পর আমরা খানিকটা ঘুমিয়ে নেব ঘুম থেকে উঠে নিজের অন্যান্য কাজ অথবা পরিবারের কাজে সহযোগিতা করব। দুপুরে কোরআন তেলাওয়াত যোহরের নামাজ আদায় করে আমরা একটা বই  নিয়ে পড়তে বসবও যে বইটা খুব প্রিয় এমন বই নিয়ে , যে বইটা পড়তে আনন্দ পান এরকম একটা বই পড়বেন।  পড়া শেষে আমরা আমাদের পরিবারের সাথে ইফতার তৈরিতে সহযোগিতা করতে পারি।

 কিভাবে আমরা আমাদের রুটিন কে পরিচালনা করলে খুব ভালোভাবে আমাদের দুনিয়া এবং আখেরাতে সুষ্ঠুভাবে করা সম্ভব  সে বিষয়ে আমরা সর্বাত্বক চেষ্ঠা করবও।

 কিভাবে আপনি রমজানে পড়ালেখা মনোযোগ সহকারে চালিয়ে যেতে পারেন নিজের দিনগুলোকে পর্যালোচনা করে নিজে একটা রুটিন তৈরি করে নেন আমার উপরোক্ত বিষয়গুলো অনেকের ক্ষেত্রে সম্ভব  হতে পারে আপনার ক্ষেত্রে তাই নিজের মতো করে একটা রুটিন তৈরি করে প্রতিদিন কয়েক ঘণ্টা রাখুন নিজের পড়ালেখার করার জন্য। দীর্ঘদিন পড়ালেখা থেকে দূরে থাকলে আমাদের পড়ালেখার প্রতি এক ধরনের অনাগ্রহ সৃষ্টি হয়। সেই সাথে আমাদের পূর্ব পড়াগুলো ভুলে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

রমজানে আমরা ইসলামকে ভুলে  ইসলামকে সাথে রেখেই আমরা আমাদের পড়ালেখা চালিয়ে যাব । 

প্রতিদিনের শিক্ষা বিষয়ক তথ্য পেতে আমাদের সাথে থাকুন- ডেইলি এডু নিউজ


Share This News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *