ঢাবি “গ”ইউনিটের ভর্তি প্রস্তুতি ; সেরা বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য চাই সেরা প্রস্তুতি

Share This News

বাংলাদেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ এর মধ্যে একটি হচ্ছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বলা হয় প্রাচ্যের অক্সফোর্ড।  করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেই শুরু হবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি যুদ্ধ। যারা ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগ থেকে  উত্তীর্ণ হয়ছো।তাদের বেশির ভাগেরই লক্ষ্য থাকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় “গ” ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা দেওয়া এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি  আসন নিজের করে নেওয়া। যার প্রস্তুতি যত ভালো হবে  তার চান্স পাওয়া ততটাই সহজ ও নিশ্চিত  হবে। তবে এই প্রস্তুতি রয়েছে কিছু ধারাবাহিকতা যা অনুসরণ করলে একজন শিক্ষার্থী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে গ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় ভালো ফলাফল করা অনেকটাই সহজ হয়ে যায়।

কথা বলবো কিভাবে একটি আসন তুমি নিজের করে নিতে পারো তোমার ভর্তি প্রস্তুতির মাধ্যমে-

ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ অর্থাৎ গ ইউনিটের প্রশ্নের মানবন্টন সম্পর্কে প্রথমে পরিষ্কার একটা ধারণা দিই-

বিগত বছরগুলোতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ২০০ নম্বরের এর মধ্যেই ১২০ নাম্বার থাকত লিখিত পরীক্ষায় ৮০ নম্বর থাকত জিপিএ উপর।

এবছর করোনা পরিস্থিতির কারণে এইচএসসি পরীক্ষা না হওয়াতে  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নের মানবন্টন কিছুটা পরিবর্তন এসেছে।এ বছর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষা হবে মোট ১২০ নম্বরের। এর মধ্যে ২০ নম্বর থাকবে জিপিএ এর উপরে। বাকি  ১০০ নম্বর অনুষ্ঠিত হবে ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে এর মধ্যে ৪০ নম্বর থাকবে লিখিত পরীক্ষায় আর  ৬০ নম্বর থাকবে বহুনির্বাচনী পরীক্ষা।

 যে যে বিষয়ের উপরে গ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয় এবং বিষয়ভিত্তিক নম্বরের মানবন্টন-

বহু নির্বাচনী পরীক্ষার মানবন্টন-

বাংলা (আবশ্যিক)১২১২
ইংরেজি (আবশ্যিক)১২১২
হিসাববিজ্ঞান (আবশ্যিক)১২১২
ব্যবসায় নীতি ও প্রয়োগ (আবশ্যিক)১২১২
মার্কেটিং/ ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং (আবশ্যিক)১২১২
মোট নম্বর = ৬০মোট প্রশ্ন = ৬০

 প্রতিটি প্রশ্নের জন্য থাকবে ১ নম্বর আর প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য কর্তন করা হবে ০.২৫নম্বর।

লিখিত অংশের ভর্তি পরীক্ষার মানবন্টন- 

বিষয়প্রশ্ন সংখ্যানম্বর 
অনুবাদ বাংলা থেকে ইংরেজি০৫০৫
অনুবাদ  ইংরেজি থেকে বাংলা০৫০৫
বিষয় ভিত্তিক সংক্ষিপ্ত প্রকাশ (ইংরেজি)০৫০৫
Precis writing০১০৫
সংক্ষিপ্ত রচনা (বাংলা)০১০৫
৫ টি আবশ্যিক বিষয় থেকে সংক্ষিপ্ত প্রশ্নের উত্তর০৫১৫
মোট প্রশ্ন = ২২মোট নম্বর = ৪০

এবার আসি কিভাবে সেরা প্রস্তুতি নেওয়া যায় গ ইউনিটের জন্য

বাংলা বিষয়ের প্রস্তুতি-

প্রথম পত্রের জন্য বাংলা বোর্ড কর্তৃক প্রণিত বইটি এবং দ্বিতীয় পত্রের জন্য নবম-দশম শ্রেণির বাংলা ব্যাকরণ বইটির উপর বিশেষভাবে ফোকাস করে প্রস্তুতি নাও।এছাড়া বিগত বছরে প্রশ্ন সম্পর্কে ধারণা নিতে যে কোন প্রশ্নব্যাংক অনুসরণ করও।

ইংরেজী বিষয়ের প্রস্তুতি-

ইংরেজি বিষয়ে ভালো করতে হলে শুরু থেকে বেসিক  কিছু জিনিস জানা থাকতে হবে। ইংরেজি বিষয়ে আমাদের মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শ্রেণীতে যে সকল বিষয় নিয়ে পড়ানো হয়েছে ঐ  বিষয়গুলো থেকেই ভর্তি পরীক্ষায় প্রশ্ন এসে থাকে। যে সকল বিষয় থেকে প্রশ্ন এসে থাকে প্রায়

যেমন Voice, Narration, Synonym, Antonym, Correction, Spelling, Preposition, Phrase & Idioms ইত্যাদি

এছাড়া প্রশ্নের ভালো আইডিয়ার জন্য যে কোন একটা প্রশ্ন ব্যাংক  অনুসরণ করা যেতে পারে.

হিসাববিজ্ঞান বিষয়ে প্রস্তুতি-

 মূল বইয়ের সকল বিষয় সম্পর্কে ভালো ধারণা থাকা খুবই জরুরী। যার মূল বইয়ের উপর যত বেশি দক্ষতা এবং আয়ত্ত থাকবে সে ভর্তি পরীক্ষায় ততো ভালো করবে এটা নিশ্চিত।

 মূল বইকে প্রাধান্য দিয়ে সহায়িকা হিসেবে প্রশ্নব্যাংক থেকে বিগত বছরের প্রশ্ন সম্পর্কে ধারণা নাও।

মার্কেটিং বিষয়ে প্রস্তুতি-

বইয়ের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত কয়েকবার রিভিশান দাও।মুখস্ত করা বিষয় গুলো মুখস্ত করে নাও। প্রতিদিনের পাঠ্যবইয়ের সাথে সাথে বিগত বছরের প্রশ্ন গুলো সমাধান করে নাও।

ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিষয়ে  প্রস্তুতি –

বইয়ের বেসিক বিষয়ে ক্লিয়ার করে নাও। সূত্রগুলোর প্রতি নজর দাও যাতে যে কোন গানিতিক সমসায় খুব সহজে সমাধান করতে পারো।বিগত বছরের প্রশ্ন সমাধান করও এতে প্রশ্ন সম্পর্কে ধারণা পাশাপাশি পরীক্ষা ভীতি দূর হবে ।

আরো কিছু দিক নির্দেশনা-

মুখস্থ বিষয়গুলোর উপর জোর দিতে হবে। এ ছাড়া শেয়ারবাজার, আন্তর্জাতিক ব্যবসায়-সম্পর্কিত জ্ঞান এই বিষয়গুলো  ভর্তি পরীক্ষা ভালো করতে বেশ কার্যকরী ভূমিকা রাখবে।

সর্বশেষ আমরা দেখেনি গ ইউনিটের বিষয়ভিত্তিক আসন সংখ্যা,যার একটি আসন দখল করতে তোমার লড়তে হবে “শ”খানেক  শিক্ষার্থীর বিপরীতে-

ভর্তির জন্য নির্বাচিত মােট ১২৫০ জনকে মেধা অনুসারে নিম্নলিখিত ৯ (নয়) টি বিভাগে ভর্তির জন্য বিবেচনা করা হবে:

ম্যানেজমেন্ট১৮০ জন
একাউন্টিং এন্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস১৮০ জন
মার্কেটিং১৮০ জন
ফিন্যান্স১৮০ জন
ব্যাংকিং এন্ড ইস্যুরেন্স১৫০ জন
ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম্স১১৫ জন
ট্যুরিজম এন্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট১১৫ জন
ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস১১৫ জন
অর্গানাইজেশন স্ট্রেটেজি এন্ড লিডারশীপ৩৫ জন
মোট আসন সংখ্যা১২৫০

সর্বশেষ কথা-

বাণিজ্য বিভাগের বেশির ভাগ শিক্ষার্থীর লক্ষ্য থাকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ। আসন সীমিত থাকায় ভর্তির জন্য রীতিমতো যুদ্ধ করতে হয় শিক্ষার্থীদের। যদিও পরীক্ষাকেন্দ্রে প্রত্যেক শিক্ষার্থীই কিছুটা নার্ভাস বোধ করে। খুব বেশি চিন্তা না করে তোমাদের  উচিত হবে মাথা ঠান্ডা রেখে পরীক্ষা দেওয়া। এ ছাড়া কোনো প্রশ্নের ব্যাপারে একেবারে অনিশ্চিত থাকলে তা উত্তর না করাই ভালো। কারণ, প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য নম্বর কাটা যায়।


Share This News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *