জাহাঙ্গীর আলমকে নৌকার মাঝি হিসাবে দেখতে চায় পাটুয়াভাঙ্গা ইউপির সর্বস্থরের মানুষজন

Share This News

কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলার পাটুয়াভাঙ্গা ইউনিয়নের সর্বস্থরের লোকের প্রিয়পাত্র আলহাজ্ব মোঃ জাহাঙ্গীর আলম।তিনি নৌকা প্রতীকের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করে জয়যুক্তহোক এটাই স্থানীয় ইউনিয়নের বাসিন্দাদের চাওয়া পাওয়া।

আলহাজ্ব জাহাঙ্গীর আলমের রাজনৈতিক জীবনঃ

রাজনৈতিক মাঠে আলহাজ্ব জাহাঙ্গীর আলম একজন সর্বপরিচিত ও সর্বআস্থাবান লোক।রাজনীতিকে তিনি মানব সেবার মাধ্যম হিসাবে মানুষের ধারে ধারে গিয়ে মানুষের কল্যাণে কাজ করেছেন।রাজনৈতিক পরিচয়ে তিনি, উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সদস্য, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি, পাটুয়াভাঙ্গা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম, বিগত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পাটুয়াভাঙ্গা ইউনিয়ন নির্বাচন কমিটির সদস্য সচিব ছিলেন।

ছাত্র অবস্থায় ৯০ এর স্বৈরাচার আন্দোলনে অংশগ্রহণ করেন। ১/১১ দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনাকে গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে পাকুন্দিয়ায় আন্দোলনরত অবস্থায় পুলিশের হামলায় আহত হন বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী মোঃ জাহাঙ্গীর আলম। তার দাদা মরহুম আহমদ আলী ছিলেন পাটুয়াভাঙ্গা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য, পিতা পাটুয়াভাঙ্গা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আলহাজ্ব মোঃ হাসিম উদ্দিন। ছোট ভাই মহসিন কবির তরুণ উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক।

এলাকার সাধারণ মানুষের চোখে জনাব উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সদস্য, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি, পাটুয়াভাঙ্গা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম, বিগত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পাটুয়াভাঙ্গা ইউনিয়ন নির্বাচন কমিটির সদস্য সচিব ছিলেন।

ছাত্র অবস্থায় ৯০ এর স্বৈরাচার আন্দোলনে অংশগ্রহণ করেন। ১/১১ দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনাকে গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে পাকুন্দিয়ায় আন্দোলনরত অবস্থায় পুলিশের হামলায় আহত হন বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী মোঃ জাহাঙ্গীর আলম। তার দাদা মরহুম আহমদ আলী ছিলেন পাটুয়াভাঙ্গা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য, পিতা পাটুয়াভাঙ্গা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আলহাজ্ব মোঃ হাসিম উদ্দিন। ছোট ভাই মহসিন কবির তরুণ উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক।

সাধারণ মানুষের চোখে আলহাজ্ব জাহাঙ্গীর আলম মানুষটি একজন আস্থাভাজন ও পরোপকারি। লোক মুখে শোনা যায়,তিনি করোনাকালীন এবং যেকোন সমস্যায় এলাকার মানুষের পাশে দাড়িয়েছেন।

এলাকার মানুষ আলহাজ্ব জাহাঙ্গীর আলমের কথা বলতে গিয়ে বলে,

“ মানুষ নির্বাচনের পূর্বে আশ্বাস দেয় ব্যক্তি স্বার্থে কিন্তু জাহাঙ্গীর আলম ভাই নির্বাচনকে উদ্দেশ্য করে নয় বরং এমনেতেই সবার বিপদে সবার আগে পাশে থাকে”

“রাজনীতিকে উনি ব্যাক্তি স্বার্থের পিছে কাজে না লাগিয়ে মানুষের কল্যাণে কাজ করেছে।সমাজে অনেককে দেখা যায় রাজনীতিকে পুজি করে নিজের স্বার্থ হাসেলের পায়তারা করে কিন্তু জাহাঙ্গীর আলম এর ব্যাতিক্রম তিনি তার শ্রম ও মেধা  দিয়ে ব্যবসা-বাণিজ্য করে  উপার্জিত অর্থ জনকল্যাণে ব্যয় করে”

“এই করোনা দুর্যোগে জাহাঙ্গীর আলম পাটুয়াভাঙ্গা এলাকার মানুষের ধারে ধারে সাহায্য সহযোগীতা পৌছে দিয়েছে ”

পাটুয়াভাঙ্গা ইউপির নির্বাচনে নৌকার প্রার্থীর মনোয়ন নিয়ে জনমানুষের আকাঙ্খা ঃ

পাটুয়াভাঙ্গা ইউপির স্থানীয় সর্বস্থরের লোকজনে আশা ও  আকাঙ্খা জাহাঙ্গীর আলমকে নিয়ে। স্থানীয় বাসিন্দার মতে, জাহাঙ্গীর আলম ভাই নৌকা প্রতিকে মনোয়ন পেয়ে নির্বাচন করুক এটাই আমরা চাই।জাহাঙ্গীর আলম নির্বাচিত হলে তবেই আমাদের এলাকার জনমানুষের উন্নতি এবং ইউনিয়ন পরিষদ উন্নতি হবে।জাহাঙ্গীর আলম মনোয়ন প্রত্যাশি এটাই তো আমাদের জন্য আনন্দের বিষয় এবং আমাদের আশাব্যঞ্জক বিষয়।আমরা চাই উনি নৌকা প্রতিকে মনোয়ন পেয়ে নির্বাচিত হয়ে আমাদের সমাজ ও সমাজের মানুষের হয়ে কাজ করুক।

নির্বাচন নিয়ে আলহাজ্ব জাহাঙ্গীর আলমের মতামত-

এলাকার মানুষ চায় আমি তাদের হয়ে সমাজের প্রতিনিধিত্ব করি।তাই নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্য নৌকা প্রতিকে মনোয়ন প্রত্যাশি।আমি সবসময় আমার রাজনৈতিক দল আওয়ামীলিগের সুখে দুঃখে পাশে ছিলাম।জীবনের সর্বক্ষেত্রে নিজের রাজনৈতিক দলের স্বার্থ ও সাধারণ মানুষের স্বার্থ দেখেছি। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ আমাকে অনুপ্রাণিত করেছে সবসময় ।আমি তার পথাদর্শে আমার এলাকার ও দেশের জন্য কাজ করে যাওয়ার চেষ্টা করেছি। ইনশাল্লাহ আমি সামনেতেও মানুষের জন্য কাজ করবও আওয়ামীলিগের হয়ে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক হয়ে।আমি মানুষকে মন ভোলানো আশ্বাস কখনও দিই নাই, মানুষের জন্য যা করেছি তা নিজের মানবিকতা ও আদর্শের জায়গা থেকে করেছি।


Share This News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *