জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি আবেদন বিস্তারিত

Share This News

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক সম্মান প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষার অনলাইন আবেদন শুরু হবে আগামী ১ জুন ।  এই আবেদন প্রাথমিকভাবে  চলবে ১৫ জুন পর্যন্ত।প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত প্রার্থীরা আবেদন করতে পারবে ২৪ থেকে ২৯ জুন পর্যন্ত।পরবর্তীতে দ্বিতীয় ধাপে আবেদন করতে পারবেন ১ থেকে ৬ জুলাই পর্যন্ত।

গতকাল(শুক্রবার) জাহাঙ্গীরনগর  বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা পরিচালনা কমিটির সদস্যসচিব ও ডেপুটি রেজিস্ট্রার (শিক্ষা) আবু হাসান এই তথ্য জানায়।

আবেদন প্রক্রিয়া যেভাবে সম্পন্ন করতে হবে-

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি আবেদন সম্পন্ন করতে হবে দুই দফায়।

প্রাথমিক আবেদন সম্পন্ন করতে হবে ৫৫ টাকা ফি দিয়ে।প্রাথমিক আবেদনকারীদের নির্বাচন করা হবে উচ্চমাধ্যমিক (এইচএসসি) পরীক্ষার ফলের ওপর ভিত্তি করে।প্রাথমিক আবেদন সম্পূর্ণকারী নির্বাচিত শিক্ষার্থীরা করে চূড়ান্ত পর্বে আবেদনের জন্য নির্বাচিত হবেন।চূড়ান্ত পর্বে আবেদনকারীরা অংশগ্রহণ করতে পারবে ভর্তি পরীক্ষায়।ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে ১০টি ইউনিটে এই ১০ ইউনিটে মোট ১ লাখ ৮ হাজার জনকে নির্বাচিত করা হবে।

উক্ত বিষয়ে সদস্যসচিব ও ডেপুটি রেজিস্ট্রার (শিক্ষা) আবু হাসান জানায়,

প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত ভর্তি-ইচ্ছুকদের চূড়ান্ত দফায় পুনরায় আবেদন করতে হবে। চূড়ান্ত দফার প্রথম ধাপের আবেদন চলবে ২৪ থেকে ২৯ জুন। ১ থেকে ৬ জুলাই পর্যন্ত দ্বিতীয় ধাপে আবেদনপ্রক্রিয়া চলবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ে  ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত বিভিন্ন অনুষদ-

গাণিতিক ও পদার্থবিষয়ক অনুষদ (এ ইউনিট) এবং জীববিজ্ঞান অনুষদে (ডি ইউনিট)

উক্ত ইউনিটে প্রাথমিক আবেদন যোগ্যতা-

এইচএসসি পরীক্ষায় ন্যূনতম জিপিএ–৪.০০ থাকতে হবে

সমাজবিজ্ঞান (বি ইউনিট), কলা ও মানবিক অনুষদে (সি ইউনিট

উক্ত ইউনিটে আবেদন যোগ্যতা-

আবেদনের ন্যূনতম যোগ্যতা জিপিএ–৩.৫০ থাকতে হবে।

উপোরক্ত ইউনিটে  প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত হবে প্রতিটিতে ১৮ হাজার জন করে মোট ৭২ হাজার জন।

চূড়ান্ত পর্বে শিক্ষার্থীরা ১ হাজার ১০০ টাকা ফি  দিয়ে আবেদন করতে পারবে।

তবে,সি১ ইউনিটে (নাটক ও নাট্যতত্ত্ব এবং চারুকলা) আলাদাভাবে আরও সাড়ে চার হাজার জন নির্বাচিত হবেন। এই ইউনিটে আবেদনের ন্যূনতম যোগ্যতা জিপিএ–৩.৫০।

ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদে (ই ইউনিট) আবেদনের যোগ্যতা থাকতে হবে জিপিএ–৩.৫০।আইন অনুষদে (এফ ইউনিট)  আবেদন যোগ্যতা জিপিএ–৪.০০। এই দুই ইউনিটে ৯ হাজার করে ১৮ হাজার জন ভর্তি–ইচ্ছুক চূড়ান্ত আবেদনের জন্য নির্বাচিত হবেন।

ইনস্টিটিউট অব বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশনে (জি ইউনিট) ও ইনস্টিটিউট অব ইনফরমেশন টেকনোলজিতে (এইচ ইউনিট)।

উক্ত ইউনিটে আবেদন যোগ্যতা এইচএসসিতে জিপিএ–৪.০০ থাকতে হবে।

এবং বঙ্গবন্ধু তুলনামূলক সাহিত্য ও সংস্কৃতি ইনস্টিটিউটে (আই ইউনিটে) জিপিএ–৩.৫০। এই তিন ইউনিটে চূড়ান্ত দফায় আবেদন করতে পারবেন সাড়ে ৪ হাজার করে মোট ১৩ হাজার ৫০০ জন।

 উপোরক্ত ৫ ইউনিটের চুড়ান্ত আবেদন যোগ্যতার ফি ৭০০ টাকা।

আবেদন প্রক্রিয়া সম্পর্কে বিস্তারিত-

ভর্তি পরীক্ষার তারিখ নির্ধারণের ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ-উপাচার্য (প্রশাসন) আমির হোসেন বলেন, করোনা মহামারির কারণে ভর্তি পরীক্ষার তারিখ নির্ধারণ করা হয়নি। অনলাইনে আবেদনের সব প্রক্রিয়া শেষ হলে মহামারির অবস্থা পর্যবেক্ষণ করে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষা নেওয়া হবে। তিনি আরও বলেন, গত কয়েক বছরের মতো শিফট ভিত্তিক পরীক্ষা নেওয়া হবে। তবে গত বছরগুলোতে প্রতি শিফটে ৯ হাজার জন করে ভর্তি–ইচ্ছুক পরীক্ষায় অংশ নিতেন। চলতি বছর প্রতিটি শিফটে স্বাস্থ্যবিধি মেনে মোট ৪ হাজার ৫০০ জন করে ভর্তি-ইচ্ছুক অংশ নিতে পারবেন। পরিস্থিতি বুঝে সময়ানুযায়ী অন্যান্য সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।


Share This News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *