ঘামের দুর্গন্ধ দূর করার উপায়

Share This News

গ্রীষ্মের তাপদাহে জনজীবন ভুগছে অনেকটাই অস্বস্তি। এই সময়কার বিব্রতকর পরিস্থিতির মধ্যে একটি হচ্ছে শরীরের ঘাম এর সাথে ঘামের দুর্গন্ধ। এছাড়া শরীরে ঘাম দুর্গন্ধ সৃষ্টির পাশাপাশি আমাদের সৃষ্টি হতে পারে ছত্রাকজনিত নানা ধরনের সমস্যা। শরীরেরর পেশির  ভাঁজে ঘামে  থকথকে ভাব তৈরি হতে পারে পারে এর ফলে  সংক্রমণ হতে পারে শরীরের ত্বক। তাই সংক্রমণের হার হতে রেহাই পেতে যথাসম্ভব শরীর ঘাম জমতে না দেওয়া। এতে কার্যকরী হিসেবে ব্যবহার করা যেতে পারে ছত্রাকবিরোধী পাউডার এবং আমাদের প্রতিদিনের  অন্তর্বাস পরিষ্কার রাখতে হবে,  খেয়াল রাখতে হবে  আমার পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার উপর।   সিনথেটিক কাপড় ব্যবহার না করাই উত্তম সবসময় পাতলা সুতি কাপড়ের জামা পড়া সবচেয়ে ভালো। নিজেকে পরিচ্ছন্ন রাখতে প্রতিদিন একাধিকবার গোসল করা যেতে পারে।

ঘর্মাক্ত দুর্গন্ধ দূর করতেই আমাদের কিছুটা যত্নবান হতে হবে খাবারের প্রতি এই সময় সালফার সমৃদ্ধ খাবার এড়িয়ে চলতে হবে।এই সময় কিছু খাবার কম পরিমান খাওয়া উত্তম এড়িয়ে চললে ভালো হয় , লাল মাংস, ডিম, পেঁয়াজ, ব্রকলি, রসুন ইত্যাদি খাবারে সালফারের পরিমাণ বেশি থাকে। এমনকি বিভিন্ন খাবারে নানা ধরনের ব্যাকটেরিয়া থাকে। এসব খাবার খেলে নানা রকমের দুর্গন্ধ তৈরি হয়।

যারা অ্যালকোহল সেবন করে তাদের শরীর থেকে এক ধরনের বাজে গন্ধ বের হতে পারে। এছাড়া যারা মানসিক উদ্বিগ্ন জনিত সমস্যায় ভোগে তাদের গায়ে দুর্গন্ধ জনিত সমস্যা সাধারণত থেকে থাকে। বয়সন্ধিকালে এ ধরনের সমস্যা সবচেয়ে বেশি দেখা দেয় এছাড়া যাদের  ডায়াবেটিস, স্নায়ুর অসুখ অথবা হাইপারথাইরয়েডিজম আছে  এই  গরম  গায়ে দুর্গন্ধ জনিত সমস্যা বেড়ে যায়।

অনেকেই এই ধরনের সমস্যা থেকে রেহাই পেতে বিভিন্ন ধরনের বাজারের সুগন্ধি ব্যবহার করে থাকেন  যা আমাদের শরীরের জন্য অনেকটাই  ক্ষতিকর তবে আমরা প্রাকৃতিক কিছু উপাদান ব্যবহার করে আমাদের এই শরীরের দুর্গন্ধ দূর করতে পারে এতে করে আমাদের শরীরের দুর্গন্ধ দূর  হবে। আমাদের শরীরে হবে প্রাণবন্ত।

কিভাবে দুর্গন্ধজনিত সমস্যা আমরা আমাদের দেহ থেকে দূর করতে পারি প্রাকৃতিক উপায়ে সে সম্পর্কে কিছুটা আলোকপাত-

মধু ব্যবহার করতে পারি-

মধু ঘামের দুর্গন্ধ দূর করতে খুবই কার্যকরী গোসলের পূর্বে একটি পাত্রে সামান্য গরম পানি নিয়ে তাতে এক চামচ পরিমাণ মধু মিশিয়ে রাখুন এই মধু মিশ্রিত পানি গোসল শেষে শরীরে ঢেলে নিন।

বেকিং সোডার ব্যবহার-

বগলের দুর্গন্ধ দূর করতে বেকিং সোডার কোনো জুড়ি নেই। বেকিং সোডার পেস্ট করে বগলে  লাগিয়ে নিন কয়েক মিনিট পর পরিষ্কার করে নিন এতে করে বগলের দুর্গন্ধ দূর হবে।

গোলাপজলের ব্যবহার

স্বাস্থ্য সচেতন অনেকে শরীরের দুর্গন্ধ গোলাপের পাপড়ি  পানি দিয়ে সাধারণত গোসল করে থাকে।  যাদের শরীরে দুর্গন্ধ দেখা দেয় তারাই দুর্গন্ধ থেকে রক্ষা পেতে গোসলের সময় পানির সঙ্গে গোলাপজল মিশিয়ে নিতে পারেন।

নিমপাতার ব্যবহার  

নিমপাতা যেকোনো ধরনের ত্বক সমস্যা থেকে সুরক্ষা  দিতে পারে। শরীরের দুর্গন্ধ দূর করতে এবং ঘামে দুর্গন্ধ জনিত  সমস্যা থেকে সুরক্ষা দিতে আমরা নিমপাতার ব্যবহার করতে পারি। এছাড়া গোসলের সময় নিমপাতা সেদ্ধ পানি দিয়ে ব্যবহার করলে শরীরের টক্সিন রোধ হয় এবং ঘামের কটু গন্ধ দূর হয়।

আরো কিছু বাড়তি পরামর্শ মেনে আপনি এই গরমে স্বস্তি অনুভব করতে পারেন এবং ঘামের দুর্গন্ধ থেকে নিজের শরীরকে সুরক্ষা দিতে পারেন-

এই গরমে প্রচুর রোদে বের হলে ছাতা নিয়ে বের হোন।কোন অবস্থা সিন্থেটিক ব্যবহার না করা উত্তম। কাপড়ের মধ্যে কালো কাপড়ের বদলে সাদা কাপড় পড়তে পারেন এতে করে  গরম কম লাগবে। সুতি কাপড় ব্যবহার করুন এবং ঢিলেঢালা পোশাক পরুন। শরীরে ঘাম জমতে দেবেন না যখন হবে তখনই রুমাল অথবা টিস্যু ব্যবহার করে ঘাম মুছে ফেলুন।প্রচুর পরিমাণ বিশুদ্ধ পানি পান করুন।

স্বাস্থ্য সম্পর্কিত আরো তথ্য পেতে ভিজিট করুন-

Daily Edu News Health Tips


Share This News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *