গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষায় যাচ্ছে ২০ টি বিশ্ববিদ্যালয়

Share This News

২০ টি বিশ্ববিদ্যালয়ে এবার সম্মলিত গুচ্ছ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।
এই গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা হবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার পরে।।ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার পূর্বে ভর্তি ইচ্ছুদের যোগ্যতা ভিত্তিক যাচাই হবে।
কেবল মাত্র যোগ্যতা অনুযায়ী বাচাইকৃত শিক্ষার্থীরা ভর্তি পরীক্ষা অংশ গ্রহন করতে পারবে।এই সকল তথ্য জানা যায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যদের সমন্বয়ে অনুষ্ঠিত এক সভায়।

আরো পড়ুনঃ

MIST Admission Circular 2020-2021 Circular published.

বাংলাদেশী শিক্ষার্থীদের স্কলারশীপ দিবে ভারত

ভর্তি পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করলও বিইউপি

শিক্ষাবৃত্তিতে ইন্দোনেশিয়ায় পড়ার সুযোগ

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা যেভাবে অনুষ্ঠিত হবে

অনুষ্ঠানে উপস্থিত বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মো. ছাদেকুল জানায় , অনুষ্ঠানে যে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য কয়েকটি সিদ্ধান্ত হলো-
শিক্ষা মন্ত্রণালয় যখন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত নেবে, তারপর এই ২০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।কিন্তু তার পূর্বে শিক্ষার্থীরা ভর্তি পরীক্ষা অংশ গ্রহনের জন্য আবেদন করবে।এই আবেদনের জন্য কোন প্রকার ফি দিতে হবে না। আবেদন করা শিক্ষার্থীদের থেকে প্রাথমিক ভাবে যোগ্যতা অনুযায়ী শিক্ষার্থীদের বাচাই করা হবে।এদের মধ্যে যারা ভর্তি পরীক্ষায় যোগ্য তারা পরবর্তীতে ৫০০ টাকা ফি বাবদ আবার আবেদন প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ করবে।

ভর্তি পরীক্ষার জন্য শিক্ষার্থীদের পূর্বের নিয়ম থেকে কিছুটা ব্যাতিক্রম হবে তা পরবর্তীতে শিক্ষার্থীরা ভর্তি বিজ্ঞপ্তি থেকে জানতে পারবে।উক্ত বৈঠক থেকে জানা যায় এই ২০ টি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের আলাদা ভর্তি পরীক্ষা কেন্দ্র শিক্ষার্থীরা নিজেদের পছন্দ অনুযায়ী পছন্দ করে ভর্তি পরীক্ষা দিবে।

এর পূর্বের এক সিদ্ধান্ত থেকে জানা যায় , ১০০ নম্বরের ভর্তি পরীক্ষা হবে বহুনির্বাচনী প্রশ্নে (এমসিকিউ)। উচ্চমাধ্যমিকের পাঠ্যসূচির ভিত্তিতে বিজ্ঞান, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা (বাণিজ্য) বিভাগের জন্য আলাদা তিনটি পরীক্ষা হবে। বিভাগ পরিবর্তনের জন্য আগের মতো আলাদা পরীক্ষা হবে না। অর্থাৎ একজন ভর্তি-ইচ্ছুক শিক্ষার্থী একটি পরীক্ষা দিয়েই যোগ্যতা অনুযায়ী ভর্তির সুযোগ পাবেন। এই পরীক্ষার মাধ্যমেই নিজ বিভাগের পাশাপাশি অন্য বিভাগভুক্ত বিষয়েও ভর্তি হতে পারবেন।
এছাড়া বিভাগভিত্তিক নম্বর বন্টন হবে,
মানবিক বিভাগের পরীক্ষা হবে বাংলা, ইংরেজি এবং তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি (আইসিটি) বিষয়ে। এর মধ্যে বাংলায় ৪০, ইংরেজিতে ৩৫ এবং আইসিটিতে ২৫ নম্বরের পরীক্ষা হবে। ব্যবসায় শিক্ষায় (বাণিজ্য) পরীক্ষা হবে হিসাববিজ্ঞান (২৫ নম্বর), ব্যবসায় গঠন ও ব্যবস্থাপনা (২৫ নম্বর), ভাষা (বাংলায় ১৩ ও ইংরেজিতে ১২ নম্বর) ও আইসিটি (২৫ নম্বর) বিষয়ে। বিজ্ঞানের শিক্ষার্থীদের ভাষা (বাংলায় ১০ ও ইংরেজিতে ১০ নম্বর), রসায়ন (২০ নম্বর), পদার্থ (২০ নম্বর) এবং আইসিটি, গণিত ও জীববিজ্ঞান বিষয়ের মধ্যে যেকোনো দুটি বিষয়ে (প্রতি বিষয়ের নম্বর ২০) পরীক্ষা দিতে হবে।


Share This News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *