গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষার পূর্ণাঙ্গ প্রস্তুতি

Share This News

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিসহ ২০টি বিশ্ববিদ্যালয় একসাথে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা নেওয়া হবে এই বছর।অন্যান্য বছরের তুলনা এই বছর ভর্তি পরীক্ষা সবার জন্য আলাদার ও অন্য অভিজ্ঞতার।অনেকে গুচ্ছ পদ্ধতির পরীক্ষারজন্য তেমন প্রস্তুত না। অনেকে চিন্তিত কিভাবে গুছিয়ে পড়বও।

আপনাদের জন্য আমাদের আজকের এই আর্টিকেল যাতে আমরা তুলে ধরবও কিভাবে আপনি গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষার জন্য পূর্ণাঙ্গ প্রস্তুতি নিবে-

বিজ্ঞান বিভাগের জন্য প্রথমে আসা যাক বিভাগীয় বিষয়গুলোর ব্যাপারে-

পদার্থ বিজ্ঞানের প্রস্তুতি-

  • প্রত্যেকটা অধ্যায়ের মূল সূত্রগুলো ব্যাখাসহ মুখস্থ রাখতে হবে।
  • বইয়ের সবগুলো একক, মাত্রা এবং সমানুপাতিক ও ব্যাস্তানুপাতিক সম্পর্ক ভালো ধারণা থাকতে হবে।
  • তপন স্যার ও আমীর হোসেন স্যারের বইয়ের প্রতিটি চ্যাপ্টারের শেষে অনুশীলনের জন্য যে এমসিকিউগুলো আছে সেগুলো ভালো করে সমাধান করতে হবে।
  • শাবিপ্রবি ব্যতীত বাকি ১৯টি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে যতগুলো সম্ভব হবে স্পেশালি খুবি, ইবি, জবি ও বিজ্ঞান প্রযুক্তি এর প্রশ্নগুলো সমাধান করার চেষ্টা করতে হবে। শাবিপ্রবির সমাধান করতে পারলে ভালো না পারলে স্কিপ করতে পারেন। এবছর শাবিপ্রবি গুচ্ছতে থাকায় শাবিপ্রবি টাইপ প্রশ্ন হবে না। বাকি ১৯টি ভার্সিটির প্রশ্নের মান বিবেচনায়ই প্রশ্ন করবে।

রসায়ন বিষয়ের প্রস্তুতি-

  • জৈব যৌগ পারলে ভালো না পারলে এতো প্যারা নেওয়ার কিছু নেই। পূর্ববর্তী বছরের প্রশ্নগুলো পড়লেই হবে।
  • যতো বেশিবার সম্ভব হাজারী ও নাগ স্যারের মূল বইটা রিভিশন দিতে হবে।
  • হাজারী ও নাগ স্যারের বইয়ের অনুশীলনের নৈর্ব্যক্তিক অবশ্যই সমাধান করতে হবে।
  • শাবিপ্রবি ছাড়া বাকি ১৯টি ভার্সিটির সমাধান করতে হবে।

জীববিজ্ঞান বিষয়ের প্রস্তুতি –

  • ইউনিভার্সিটির বায়োলজি প্রশ্ন এতো গভীর থেকে করেনা। মেইন হাইলাইট করা লাইনগুলো থেকে প্রশ্ন করে। সাথে পূর্ববর্তী বছরের প্রশ্নগুলো সমাধান করলেই যথেষ্ট।
  • যারা মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষার প্রস্তুতি নিয়েছে তারা শুধু বিগত বছরের প্রশ্নগুলো মুখস্থ করে গেলে খুব সহজেই ১৭-১৮ পাওয়া সম্ভব। অনেকে হয়তো ২০/২০ ও পাবে।

উচ্চতর  গনিতের প্রস্তুতি-

  • ক্যালকুলাসের অন্তরীকরণ পার্ট টাতে বেশি মনোযোগ দিতে হবে। যোগজীকরণের পূর্ববর্তী বছরের প্রশ্নগুলো বুঝে সমাধান করলে এক থেকে দুইটা কমন হুবহু কমন পাওয়া যাবে। আর স্থিতিবিদ্যা না পারলে স্কিপ করতে পারেন। বাকিগুলো ভালো করে পারলেই যথেষ্ট।
  • ম্যাট্রিক্স, বিন্যাস সমাবেশ, বৃত্ত, সরলরেখা, কনিক, সম্ভাবনা, ২য় পত্রের ত্রিকোণমিতি, দ্বিপদী বিস্তৃতি, বহুপদী, জটিল সংখ্যা এই অধ্যায়গুলো খুব ভালোভাবে পড়তে হবে।

বাংলা বিষয়ে প্রস্তুতি-

  • বাংলা প্রথম পত্র বইটা গুরুত্বের সাথে আরেকবার রিভিশন দিয়ে দাও।বিগত বছরের প্রশ্নগুলো দেখে নাও প্রশ্ন ব্যাংক থেকে। কবিতা ও লেখকের সম্পর্কে ভালো ধারণা রাখও।
  • বাংলা দ্বিতীয় পত্রের জন্য নবম দশম শ্রেণীর বাংলা ব্যাকরণ বইটা ভালো ভাবে দেখে নাও।বিভিন্ন প্রশ্ন ব্যাংক থেকে বিগত বছরের প্রশ্ন গুলো দেখে নাও।

ভর্তি পরীক্ষায় বাংলা ব্যাকরণের যত দ্বিধা

ইংরেজী বিষয়ে প্রস্তুতি-

  • ইংরেজি এর জন্য Right form of verb, Preposition, voice change, narration, translation, changing sentence, synonym & antonym, correction এই বিষয়গুলোই যথেষ্ট।
  • ভোকাবুলারির জন্য নিয়মত পত্রিকা পড়তে পারও। একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণির ইংরেজী প্রথম পত্র বইটা আবার অর্থ সহ ভালোভাবে দেখে নাও।
  • আরো বিস্তারিত জানতে এই আর্টিকেল দেখুন- ভর্তি পরীক্ষায় ইংরেজীতে ভয়? সমাধান এখানে

তথ্য ও যোগাযোগ বিষয়ে প্রস্তুতি-

  • এবছর ভর্তি পরীক্ষায় আইসিটি বিষয় নতুন সংযুক্ত হয়েছে। এতে ভয় পাওয়ার কিছু নেই। একটু টেকনিক্যালি পড়াশুনা করলে ইজিলি ১৬-১৭ মার্ক পাওয়া সম্ভব। এর জন্য আলাদা কোনো বই পড়তে হবে না। টেক্সট বুক থেকে জ্ঞানমূলক ধরনের এমসিকিউগুলো একটু ভালো করে পড়লেই হবে।
  • তাছাড়া প্রতিটা অধ্যায় ভালোভাবে পুনরায় রিভিশান দিতে হবে। সকল অধ্যায়ের গুরুত্বপূর্ণ সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন আসতে পারে এমন বিষয়গুলো পড়ে নাও।

Share This News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *