কিডনি রোগ থেকে বাঁচতে মেনে চলুন কিছু পরামর্শ

Share This News

কিডনি দেহের দূষিত পদার্থ বের করে দেওয়ার জন্য যন্ত্র হিসেবে কাজ করে । অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি অঙ্গ কিডনি আমাদের দেহ থেকে নাইট্রোজেন ঘটিত বর্জ্য পদার্থ বের করে দেয় এবং আমাদের রক্তকে পরিশোধিত করে।
বর্তমান বাংলাদেশ দিন দিন কিডনির রোগ আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে।
কিডনির রোগ কি কি কারনে হয় আমরা যদি সেগুলো সম্পর্কে জানি।

স্বাস্থ্য সম্পর্কিত তথ্য পেতে ভিজিট করুন- স্বাস্থ্য কথা

কিডনি রোগ বিভিন্ন কারণে হয়ে থাকে তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য কয়েকটি কারণ হচ্ছে-

  • পরিমিত পানি না খাওয়া
  • অতিরিক্ত স্থূলতা
  • বহুমূত্র রোগ ডায়াবেটিস থাকা
  • অনেকক্ষণ বসে কাজ করা
  • দীর্ঘমেয়াদি ওষুধ সেবন করা
  • ব্যথানাশক ওষুধ সেবন করা
  • অনেক সময় ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হিসেবে কিডনে ফেলার হতে পারে।

আমাদের দৈনিন্দ খাদ্যতালিকায় এমন কিছু খাদ্য রাখতে পারি যা আমাদের কিডনিকে কিডনি রোগ থেকে রক্ষা করে। আমরা এখন এমন কিছু খাবারের কথা বলব যা আপনার কিডনিকে বিভিন্ন রোগ থেকে সুরক্ষা দেবে ।


এমন খাদ্য তালিকায় রয়েছে


লাল ক্যাপসিকাম-
বাজারে বিভিন্ন ধরনের ক্যাপসিকাম পাওয়া যায় এদের মধ্যে একটি হচ্ছে লাল জাতের ক্যাপসিকাম। ক্যাপসিকামের রয়েছে লাইকোপেন, অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, যা কিছু কিছু ক্যানসারের প্রতিরোধক হিসেবে কাজ করে।
তাছাড়া এতে রয়েছে ভিটামিন সি ভিটামিন এ ভিটামিন বি সিক্স ফলিক এসিড ও ফাইবার।


বাঁধাকপি


বাঁধাকপি একটি শীতকালীন সবজি কিন্তু বর্তমানে আমরা বাঁধাকপি প্রায় সারাবছরই পেয়ে থাকি। এ বাঁধাকপিতে কিছু ভিটামিন এসিড রয়েছে যা আমাদের দেহে ক্যান্সার প্রতিরোধক হিসেবে কাজ করে। তাছাড়া এটি কিডনির প্রদাহ জনিত সমস্যা ও হূদরোগ প্রতিরোধ করে।


পেঁয়াজ
এর মধ্যে প্রচুর পরিমাণে ফ্ল্যাভোনোয়েড রয়েছে। বিশেষ করে রয়েছে কুয়ারসেটিন। এটি একটি শক্তিশালী অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট যা হৃদরোগ প্রতিরোধে সাহায্য করে। বিভিন্ন ধরনের ক্যানসার প্রতিরোধেও এটি কাজ করে। পেঁয়াজের মধ্যে রয়েছে অল্প পরিমাণে পটাশিয়াম। এটি ক্রোমিয়ামের ভালো উৎস। মিনারেলস রয়েছে যা কার্বোহাইড্রেট, প্রোটিন এবং চর্বির বিপাকে সাহায্য করে।

আপেল
আপেল দেহের বাজে কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে। কোষ্টকাঠিন্য প্রতিরোধ করে, হৃদরোগ থেকে সুরক্ষা দেয়, ক্যানসারের ঝুঁকি কমায়। এর মধ্যে রয়েছে উচ্চমাত্রার আঁশ। রয়েছে অ্যান্টি-ইনফ্লামেটোরি গুণ, যা প্রদাহরোধে কার্যকর।

রসুন
আমরা রসুনের বিভিন্ন গুণের কথা জানি। এটি আমাদের রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে। আমাদের দেহের বিভিন্ন প্রদাহ জনিত সমস্যা থেকে এটি প্রতিরোধ করে। এটি আমাদের রক্তের কোলেস্টেরল কমায় এবং কিডনি সুস্থ রাখতে ভূমিকা পালন করে।


Share This News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *